মাইলসকে শাফিনের আইনি নোটিশ

দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ড মাইলসের সদস্যদের কাছে আইনি নোটিশ পাঠালেন আরেক সদস্য শাফিন আহমেদ। গতকাল বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোস্তফা জামাল পাশা শাফিন আহমেদের পক্ষে মাইলস সদস্যদের কাছে এই নোটিশ ইস্যু করেন। নোটিশে উল্লেখ করা হয়, মাইলস ব্যান্ডের প্রতিষ্ঠাতা শাফিন আহমেদ এবং বর্তমানে এটি মাইলস ব্যান্ড লিমিটেডের সম্পত্তি।

মাস দু-এক ধরেই গানের দল মাইলস নিয়ে নানা কথা শোনা যাচ্ছে। কেউ বলছেন, জনপ্রিয় ব্যান্ড মাইলস ভেঙে গেছে, কেউ বলছেন মাইলস থেকে বের হয়ে গেছেন শাফিন আহমেদ, আবার কারও মতে দলের অন্য সদস্যদের সঙ্গে মতবিরোধের কারণে কনসার্টে দেখা যাচ্ছে না শাফিন আহমেদকে। গত রোববার দুপুরে প্রথম আলোর সঙ্গে শাফিন আহমেদ জানান, ব্যান্ডের সদস্যদের মধ্যে কিছু সমস্যা আছে। এসব সমস্যার পুরোপুরি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তিনি মাইলসের কোনো শোতে অংশ নেবেন না।

সেদিন শাফিন আরও জানান, এই ব্যান্ডের জুনিয়ররা নাকি তাঁর সঙ্গে বেয়াদবি করছেন, সিনিয়ররা এটা বুঝতে চান না। শুধু তা-ই নয়, গানের দলের অন্য সদস্যরা নাকি তাঁর জনপ্রিয়তাকে ঈর্ষা করছেন। এসব কারণে কিছুদিনের জন্য ব্যান্ডের সব কার্যক্রম থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখেছেন।

এদিকে শাফিন আহমেদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে প্রথম আলো কথা বলে মাইলস ব্যান্ডের বাকি সদস্য হামিন আহমেদ, মানাম আহমেদ, তূর্য আর জুয়েলের সঙ্গে। তাঁরা নিজেদের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন।

মাইলসের সদস্যদের মধ্যে এমন পরিস্থিতি দেখে হতাশ ভক্ত আর শ্রোতারা। তারা প্রিয় গানের দলের সদস্যদের সবকিছু ভুলে একসঙ্গে আবার এক মঞ্চে দেখার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

শাফিন আহমেদ নিজেকে ‘মাইলসে’র উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা দাবি করে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন অন্য সদস্যদের কাছে। নোটিশে জানানো হয়, মাইলসের কার্যক্রম পরিচালনা করার ক্ষমতা একমাত্র শাফিন আহমেদ রাখেন। কিন্তু সম্প্রতি তাঁকে ছাড়াই ব্যান্ডটি স্টেজে শো করছে, যা সম্পূর্ণ বেআইনি। মাইলস ব্যান্ডের সব শো বন্ধ করাসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ব্যান্ডের সঙ্গে লেনদেন বা যোগাযোগ না করার অনুরোধ করা হয়। অন্যথায় মাইলসর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবেন শাফিন আহমেদ।

শাফিন আহমেদের আইনি নোটিশ প্রসঙ্গে হামিন আহমেদের সঙ্গে যোগযোগ করা হয়। আজ শুক্রবার প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘আমরা নোটিশের ব্যাপারটি শুনেছি। শাফিন নোটিশের একটি কপি তাঁর ফেসবুক পেজে পোস্ট করেছে। আমরা সবাই মিলে মাইলস, তাই দলের সবার সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলার পর আমাদের মতামত জানাতে পারব।’

Comments

comments