বিপিএল চ্যাম্পিয়ন মাশরাফির রংপুর

আবারো বাংলাদেশ প্রিমিয়িার লিগের(বিপিএল) শিরোপা উঠলো মাশরাফি বিন মোর্তজার হাতে। মঙ্গলবারের ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটসকে বিধ্বস্ত করে শিরোপা জিতলো রংপুর রাইডার্স। মাশরাফির চতুর্থ হলেও টুর্নামেন্টে রংপুরের এটি প্রথম শিরোপা। ৫৭ রানের বড় ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছে তারা।

হাইভোল্টেজ ফাইনালে এদিন ব্যাটে-বলে পরাস্থ হয়েছে সাকিব আল হাসানের ঢাকা। মূলত রংপুরের দুই বিদেশী ক্রিকেটার ক্রিস গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালামের জুটির কাছেই হেরে গেছে তারা। এই জুটির সুবাদে আগে ব্যাট করে ১ উইকেটে ২০৬ রান তোলে রংপুর। অথচ ব্যক্তিগত ২২ রানে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন গেইল। সাকিব সেই ক্যাচ হাতছাড়া করেছেন। ওই সময় গেইল আউট হয়ে গেলে রংপুরের ইনিংস কতটা দীর্ঘ হতো আগের ম্যাচগুলো দেখলেই বোঝা যায়।

গতবারের চ্যাম্পিয়নরা ম্যাচ হেরেছে ৫৭ রানে। আগে ব্যাট করে ক্রিস গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালামের রেকর্ড পার্টনারশিপে রংপুর রানের পাহাড় করে। কিন্তু সেই রান তাড়া করার মতো কোন লড়াই করতে পারেনি ঢাকা। তারকা সমৃদ্ধ দলটির খেলায় ছিলো না কোন পেশাদারিত্বের ছাপ। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান জহিরুল ইসলাম ৩৮ বলে ৫০ রান করলেও অন্য কোন ব্যাটসম্যানই লড়াই করতে পারেননি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬ রান এসেছে অধিনায়ক সাকিবের ব্যাট থেকে। নবম ওভারে সাকিব আউট হওয়ার সাথে সাথেই মূলত ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছে দলটি। সে সময় তাদের স্কোর ৫ উইকেটে ৭১ রান। এসময়ই নিশ্চিত হয়ে যায় রংপুরের শিরোপা। এরপর যা হয়েছে তা নিছক আনুষ্ঠানিকতা।

মাত্র এক রানের প্রথম দুই উইকেট হারানো দলটির ব্যাটসম্যানরা একের পর এক বিলিয়ে দিয়েছেন উইকেট। অবশ্য রংপুরের বোলারদের কৃতিত্ব না দিলে ভুল হবে। মাশরাফির দুর্দান্ত নেতৃত্ব আর বোলারদের নিজেদের উজার করে দেয়ার মানসিকতা জয় এনে দিয়েছে দলটিকে। নিয়মিত বোলারদের সবাই উইকেট নিয়েছেন আজ। সোহাগ গাজি, নাজমুল ইসলাম ও লঙ্কান ইসুরু উদানা দুটি করে এবং মাশরাফি, মালিঙ্গা, রবি বোপারা ও রুবেল হোসেন একটি করে উইকেট নিয়েছেন। অবশ্য শেষ ওভারে ঢাকার যখন ৬০ রান প্রয়োজন তখন মাশরাফি বল তুলে দিয়েছেন ক্রিস গেইলের হাতে। সেই ওভারে দুই রান দিয়েছেন গেইল।

গেইলের আরেক সেঞ্চুরি : ক্রিসে গেইলের আরেকটি দানবীয় ইনিংসে আকাশছোঁয়া স্কোর গড়েছে রংপুর রাইডার্স। মিরপুরে বিপিএলের ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিরুদ্ধে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে রংপুর শেষ পর্যন্ত ১ উইকেটে করেছে ২০৬ রান। গেইল ১৪৬ এবং ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ৫১ রান করেন। দুজনই অপরাজিত ছিলেন।

আজকের এই ইনিংসের মাধ্যমে গেইল টি২০ ক্যারিয়ারে ১১ হাজার রান করলেন। ৩২০টি ম্যাচে তিনি এই স্কোর করেন।
সেইসাথে গেইল আজ আরেকটি সেঞ্চুরি করলেন। এটি ছিল তিন ম্যাচে তার দুই সেঞ্চুরি। মাত্র ৫৭ বলে তিনি সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। এর মধ্যে ছিল ৪টি চার আর ১১টি ছক্কা। অবশ্য আজ তিনি ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ স্কোর করতে পারেননি। তার সর্বোচ্চ স্কোর অপরাজিত ১৭৫ রান। আজ তিনি ৬৯ বলে ১৪৬ রান করেন। তার সাথে ম্যাককালাম ছিলেন ৫১ রানে অপরাজিত।

ফাইনালে টস জিতে রংপুরকে প্রথমে ব্যাটিং-এর আমন্ত্রণ ঢাকার
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টুয়েন্টি টুয়েন্টি ক্রিকেটের পঞ্চম আসরের ফাইনালে টস জিতে প্রথমে রংপুর রাইডার্সকে ব্যাটিং-এর আমন্ত্রণ জানায় গতবারের চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ঢাকার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। লিগ পর্বে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয়স্থানে থেকে কোয়ালিফাইয়ার খেলার সুযোগ পায় ঢাকা। তাই প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে ৯৫ রানে হারিয়ে ফাইনালে উঠে ঢাকা। ঢাকার কাছে ম্যাচ হেরে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে চলে যায় কুমিল্লা।

আর লিগ পর্বে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় ও চতুর্থ স্থান পেয়ে টুর্নামেন্টের একমাত্র এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলো খুলনা টাইটান্স ও রংপুর রাইডার্স। ওই ম্যাচে খুলনাকে ৮ উইকেটে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে উঠে রংপুর। সেখানে কুমিল্লাকে ৩৬ রানে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে রংপুর।

ঢাকা ডায়নামাইটস একাদশ : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মেহেদি মারুফ, এভিন লুইস, জো ডেনলি, কাইরন পোলার্ড, শহিদ আফ্রিদি, মোসাদ্দেক হোসেন, সুনীল নারাইন, জহিরুল ইসলাম, আবু হায়দার রনি ও খালেদ আহমেদ।

রংপুর রাইডার্স একাদশ : মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), ক্রিস গেইল, জনসন চালর্স, ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, রবি বোপারা, মোহাম্মদ মিথুন, নাহিদুল ইসলাম, সোহাগ গাজী, রুবেল হোসেন, নাজমুল ইসলাম ও ইসুরা উদানা।

Comments

comments