বিল চাওয়ায় ৭ দিন দোকান বন্ধের নির্দেশ ঢাবি ছাত্রলীগ নেতার

ঢাকা মেডিকেল কলেজ সংলগ্ন একটি হোটেলে কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীর কাছে খাওয়ার পর বিল চাওয়ায় হোটেল কর্মচারীদের মারধর করা হয়েছে।

শুধু তাই নয়, নিজ অনুসারি কর্মীদের এই অপকর্মের সাফাই গেয়ে ঘটনাস্থলে এসে হোটলটি এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে ভাই ভাই হোটেলে জহুরুল হক হলের কয়েকজন ছাত্রলীগকর্মী খেতে যান। খাওয়ার বিল ৭৫ টাকা হয়। এই সময় তারা ৭০ টাকা দেন। হোটেল ম্যানেজার আরো ৫ টাকা চাইলে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

এক পর্যায়ে জহুরুল হক হলের ছাত্রলীগের কর্মীরা শিকল দিয়ে হোটেল কর্মচারীদের মারধর করেন।

সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের আবাসিক শিক্ষার্থী তারেক মারামাররি ঘটনাটি স্বীকার করে বলেন, ‘আমরা দু’জন ওই হোটেলে খাওয়ার জন্য গেলে ৭৫ টাকা বিল হয়। টাকা না থাকায় ৭০ টাকা দেই। কিন্তু, এক কর্মচারী খুব খারাপ ভাষায় বলেন- টাকা না থাকলে খাইতে আসেন কেন? তখন আমি কয়েকটা থাপ্পড় দেই।’

দোকানের মালিক জানান, ঘটনার সময় তিনি বাইরে ছিলেন। জহুরুল হলের কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে তার কয়েকজন কর্মচারীর ঝামেলা হয়। পরে এসে সমাঝোতা করতে চাইলে তারা শিকল দিয়ে মারধর করে।

তিনি জানান, একটু পরে ঘটনাস্থলে এসে সোহান ভাই সাত দিনের জন্য আমার দোকান বন্ধ রাখতে বলেন। পরে ঢাবির এক বড় ভাইয়ের সাহায্যে বিষয়টি মিটমাট করেছি।

বিষয়টি স্বীকার করে জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘হলের ছোট ভাইদের শান্ত করতে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।’

Comments

comments