পরকীয়া সন্দেহে শাহবাগী নেত্রীকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী গ্রেফতার

রাজধানীর মুগদায় রোববার স্বামীর হাতে শাহবাগ আন্দোলনের নেত্রী লুদমিনা আহমেদ লিজা (৩৮) খুন হয়েছেন।

তিনি উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সাথেও জড়িত ছিলেন। উদীচীর কেন্দ্রীয় সঙ্গীত বিভাগের সদস্য ও ঢাকা মহানগর সংসদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, পারিবারিক কলহের জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মুগদা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ লিজার স্বামী এসএম সাজ্জাদকে গ্রেফতার করেছে। মুগদা থানার ওসি এনামুল হক জানান, লিজা ও তার স্বামী এসএম সাজ্জাদের মধ্যে বনিবনা ছিল না। একে অপরকে পরকীয়ার সন্দেহ করতেন। রোববার সকালে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সাজ্জাদ লিজার ডান পাশের চোখে ভারি কিছু দিয়ে আঘাত করে। পরে আহত অবস্থায় লিজাকে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক লিজাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় লিজার বাবা ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এর পরই লিজার স্বামী এসএম সাজ্জাদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

লিজার বোন লিয়া জানান, এসএম সাজ্জাদ সবসময় লিজার পরিকীয়া আছে এমন সন্দেহের করতেন। তাকে মানসিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন দাম্পত্য কলহ চলছিল। সকালে লিজার শ্বশুরবাড়ি থেকে জানানো হয়, লিজা বাথরুমে পড়ে গিয়ে আঘাত পেয়েছে। তাকে মুগদা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে গিয়ে দেখি লিজা জীবিত নেই।

লিজা দুই সন্তানের জননী। স্বামীর সঙ্গে সে মুগদা থানার মানিকনগর স্কুলের পাশে একটি বাসায় থাকত। বনানীতে লিজার স্বামী সাজ্জাদের একটি ট্রেনিং সেন্টার রয়েছে।

Comments

comments