এবার পরকীয়ার বলি ৮ মাসের শিশু!

নরসিংদীতে আট মাসের এক শিশুকে গলাকেটে হত্যা করেছেন পাষণ্ড বাবা। হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দিও দিয়েছেন বাবা আপন মিয়া। বুধবার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াজ আল করণীর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ছেলেকে নিয়ে মারুফা আক্তার ও আপন মিয়া দম্পতি রায়পুরা উপজেলার মরজালে আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। বিয়ের পর কয়েক দিন যেতে না যেতেই বাড়ির মালিকের পুত্রবধূর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন আপন মিয়া।

এরপর থেকে তাদের সংসারে প্রায়ই ঝগড়া-বিবাদ লেগে থাকত। একপর্যায়ে মারুফার উপর শুরু হয় স্বামী আপন মিয়ার নির্যাতন। নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে সম্প্রতি মারুফা বাবার বাড়ি চলে যান।

গত রোববার শ্বশুর গিয়ে মারুফাকে বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর ভাড়া বাসায় নিয়ে আসেন। সকালে আপন মিয়া নিজের আট মাসের শিশু ছেলেকে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যান।

ঘটনার পর মারুফা স্বামী আপন মিয়া ও তার পরকীয়া প্রেমিকা বাড়ির মালিকের পুত্রবধূকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদ পেয়ে রায়পুরা থানার উপ-পরিদর্শক কামাল হোসেন তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে থানার পার্শ্ববর্তী কান্দাপাড়ায় এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে আপন মিয়াকে আটক করেন।

কামাল হোসেন বলেন, থানায় জিজ্ঞাসাবাদে নিজ ছেলেকে গলাকেটে হত্যার কথা স্বীকার করেন আপন মিয়া। বুধবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি শেষে তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Comments

comments