যশোরে হাসপাতালে বোমা বিস্ফোরণ

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের ওয়ার্ডের মধ্যে প্রতিপক্ষ রোগীর স্বজনের উপর হামলা ও বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বাবু (৩০) নামে একজন আহত হয়েছেন।

শনিবার সন্ধ্যার দিকে হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় তত্ত্বাবধায়কের কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসীর ভাষ্য, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে শহরের চাঁচড়া রায়পাড়া কয়লাপট্টি এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আল-আমিন ও সজল গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে সজল ও তার মা জাহেদা বেগম এবং প্রতিপক্ষের আল-আমিন আহত হন। আহতদের সন্ধ্যার দিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এরপরই হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আল-আমিনের আত্মীয় বাবুকে একা পেয়ে ধাওয়া করে প্রতিপক্ষ সজলের লোকজন। বাবুকে ধাওয়া করলে হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় মহিলা ওয়ার্ডে রোগীর বেডের নিচে গিয়ে লুকান তিনি। পরে সেখানেই মারপিট করা হয় বাবুকে। এরপর হামলাকারীরা দ্বিতীয় তলায় তত্ত্বাবধায়কের কার্যালয়ের সামনে একটি বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়।

মহিলা ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স তৃপ্তি লতা গোস্বামী জানান, ৪/৫ জন যুবক বাবু নামে একজনকে ধাওয়া করলে সে এই ওয়ার্ডের এক রোগীর বেডের নিচে লুকানোর চেষ্টা করে। পরে রোগীর বেডের নিচেই তার উপর হামলা করা হয়। এসময় ওয়ার্ডে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

তিনি আরো বলেন, ওয়ার্ডে রোগীর বেডের নিচে হামলা নজিরবিহীন। এভাবে দায়িত্ব পালন করা নার্সদের জন্য কঠিন।

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক একেএম কামরুল ইসলাম বেনু বলেন, রোগীর স্বজনদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এক পক্ষ দ্বিতীয় তলায় বোমা বিস্ফোরণ করেছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ রয়েছে। নিরাপত্তা নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি একেএম আজমল হুদা জানান, হাসপাতালের মধ্যে দুই গ্রুপ মারামারি করেছে এবং একটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

Comments

comments