নাগরিক সমাবেশেও আসন নিয়ে ছাত্রলীগের হাতাহাতি-ভাংচুর!

চেয়ারে বসা নিয়ে হাতাহাতিতে ব্যস্ত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা, ছবি: দিগন্ত বার্তা২৪

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নাগরিক কমিটি আয়োজিত সমাবেশে নিজেদের আসন নিশ্চিত করতে ছাত্রলীগের দুটি পক্ষকে হাতাহাতি, মারামারি ও চেয়ার ভাংচুর করতে দেখা গেছে। তবে আওয়ামী লীগের উর্দ্ধতন নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে তা অল্প সময়েই নিয়ন্ত্রনে আসে।

আজ শনিবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে এ ঘটনা ঘটে।  ইউনেসকোর ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ স্বীকৃতি পাওয়া উপলক্ষে নাগরিক কমিটির ব্যানারে আওয়ামী লীগের এই সমাবেশের আয়োজন করে।

জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় সমাবেশ। তারপর বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ পাঠ হয়। এসবের মধ্যেই চেয়ারে বসা নিয়ে দ্বন্দে জড়িয়ে পড়ে ছাত্রলীগ। শুরু হয় অন্যজনের উপর চেয়ার নিক্ষেপ। এসময় বেশ কিছু চেয়ার ভাংচুরও করা হয়। তবে এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের কোন নেতার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

চেয়ারে বসা নিয়ে হাতাহাতিতে ব্যস্ত ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা, ছবি: দিগন্ত বার্তা২৪

আওয়ামী লীগের এই নাগরিক সমাবেশ সম্পর্কে দুপুরে এক আলোচনা সভায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করে বলেন, ‘সমাবেশকে সামনে রেখে তারা কী ব্যবস্থা নিচ্ছে? প্রত্যেকটা স্কুল-কলেজকে চিঠি দিয়েছেন না এলে শিক্ষকদের চাকরি থাকবে না। ব্যাংকে চিঠি দিয়েছেন না এলে পাঁচ দিনের বেতন কাটা যাবে এবং আসতেই হবে।’

‘সব করপোরেশন, টিচার-শিক্ষক সবাইকে এই কথা বলে নিয়ে আসছেন। স্কুলের বাচ্চাদের নিয়ে এসেছেন। সকালে দেখে এসেছি, বড় বড় বাসে স্কুলের বাচ্চাদের তোলা হচ্ছে। আমাদের তো আপত্তি নেই।’

Comments

comments