বায়ু দূষণে দিল্লি থেকে ভাগলেন কোস্টারিকার রাষ্ট্রদূত

নয়াদিল্লির বায়ু দূষণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। দূষণ এতোই তীব্র হয়ে উঠেছে যে, সেখানে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত-কূটনীতিকরাও এ নিয়ে কথা বলছেন। এমনকি এবার একেবারে নয়াদিল্লি থেকেই ভাগলেন কোস্টারিকার রাষ্ট্রদূত মারিয়েলা ক্রুজ আলভারেজ।

দূষণের ফলে শ্বাসযন্ত্রের অসুস্থতা দেখা দেওয়ায় আলভারেজ চলে গেছেন দক্ষিণের শহর বেঙ্গালুরুতে। এ নিয়ে ফেসবুকে সম্প্রতি দেওয়া এক পোস্টে কোস্টারিকান রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমার জীবনের সবচেয়ে বাজে অভিজ্ঞতা হয়েছে দিল্লিতে।’

তার দিল্লি ছেড়ে ভেগে বেঙ্গালুরুতে যাওয়ার খবরটি বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) এসেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে। এই পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য মধ্যপ্রাচ্যের ধুলো ও পাকিস্তানের কুয়াশাকে দায়ী করছেন নয়াদিল্লির আবহাওয়াবিদরা।

আলভারেজের আগে এই মারাত্মক দূষণ নিয়ে কথা বলেন নরওয়ের রাষ্ট্রদূত হ্যানে মেলদগার্দও। তিনি বলেন, ‘আমরা বায়ু নির্মল করার চেষ্টা করছি এবং যত পারি ঘরের ভেতরে থাকার চেষ্টা করছি।’

মেলদগার্দ কোনো খেদ প্রকাশ না করলেও স্বাস্থ্য সচেতন ও নিয়মিত যোগব্যায়ামের জন্য সুপরিচিতি কোস্টারিকান রাষ্ট্রদূত আলভারেজ বলেন, ‘‘দিল্লির স্বাস্থ্যহানিকর বায়ু দূষণের অভিজ্ঞতা আমার জীবনের সবচেয়ে বাজে ব্যাপার। আমার শ্বাসতন্ত্র আক্রান্ত হয়েছে। ঠিকভাবে শ্বাসও নিতে পারছি না। জঘন্য এবং ক্লান্তিকর। এটা মজা নয়, ২ কোটি মানুষ এই বিষাক্ত বাতাসে শ্বাস নিচ্ছে, আমার খুব কাছের কিছু বন্ধুও এর মধ্যে রয়েছেন।’

তিনি ভারতের রাজনৈতিক নেতৃত্বের ওপরও ক্ষোভ ঝাড়েন। বলেন, ‘বাতাস নির্মল রাখার মৌলিক অধিকার একটি মানবাধিকার। ভারত সরকারের এই ইস্যুতে শক্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। নেতৃত্ব হলো জনগণের দেখভাল করার জন্য। এটাই সর্বাগ্রে ভাবতে হবে।’

Comments

comments