জোর করে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগপত্র নেয়া হয়েছে: আইনজীবী সমিতি

জোর করে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার পদত্যাগপত্র নেয়া হয়েছে উল্লেখ করে দিনটি বিচার বিভাগের জন্য একটি কালো অধ্যায় হিসেবে অভিহিত করেছে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি। একই সঙ্গে পদত্যাগপত্রটি প্রধান বিচারপতি লিখেছেন কি না তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় সোয়া পাঁচটার দিকে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনে সমিতির সভাপতির কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সব কথা বলেন সংগঠনটির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

রাষ্ট্রপতির কাছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগপত্র পাঠানোর কথা ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছেন উল্লেখ করে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘উনি (রাষ্ট্রপতি) পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন। এখন প্রধান বিচারপতির পদ শূন্য রয়েছে। প্রধান বিচারপতির পদ শূন্য থাকতে পারে না।’

নতুন প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেয়ার পর আগামী দিনে বিচার বিভাগ কীভাবে চলবে তা বুঝতে পারবেন বলে জানান সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবীদের এই নেতা। তিনি আশা প্রকাশ করেন, রাষ্ট্রপতি তার প্রজ্ঞা ও বিবেক দিয়ে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেবেন।

প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে সংবাদ সম্মেলনে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের বিষয়টি নজিরবিহীন। তিনি আদৌ পদত্যাগপত্র লিখেছেন কি না তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। উনি সিঙ্গাপুরে থেকে কীভাবে রাষ্ট্রপতির কাছে পদত্যাগপত্র পাঠালেন তা জনগণের জানার অধিকার রয়েছে।

সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি আরও বলেন, ‘আইনমন্ত্রী গতকাল বলেছিলেন ই-মেইলের মাধ্যমে পদত্যাগপত্র পাঠালে তা গ্রহণ করা হবে না। ওনার (প্রধান বিচারপতি) কোনো ছুটি বৃদ্ধি করা হয়নি। সকাল বেলা সংবাদমাধ্যমে জানলাম তিনি অস্ট্রেলিয়া থেকে কানাডা গেছেন। দুপুরে জানলাম তার পদত্যাগপত্র রাষ্ট্রপতির কাছে এসেছে। তাহলে উনি কীভাবে পদত্যাগপত্র দিলেন? এটা কি ই-মেইলে নাকি সরকারের কোনও এজেন্সির লোক গিয়ে নিয়ে এসেছেন?’

Comments

comments