এবার শিক্ষার্থী পেটালেন কুবি ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা!

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের এক শিক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়টির শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। রবিবার (৫ নভেম্বর) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার মো. রায়হান ইসলাম ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী।

ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, রবিবার বিকালে কুবি শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাদী (কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী), ছাত্রলীগকর্মী হাসান বিদ্যুৎ (পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ষষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থী), রাফিউল আলম দীপ্তসহ (এআইএস বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী) আরও বেশ কয়েকজন রায়হানকে কাঠ দিয়ে বেধড়ক মারধর করেন। এসময় রায়হানের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোনসহ আরও কিছু জিনিস কেড়ে নেওয়া হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় রায়হানকে অটোরিকশায় করে নিয়ে যান তার বন্ধুরা।

রায়হান বলেন, ‘আমাকে তারা ডেকে নিয়ে শিবির বলে মারধর শুরু করে। অথচ আমি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নই।’ অভিযুক্ত সাইফুল হাসান সাদীর মুঠোফোনে বার বার কল দেওয়া হলেও তিনি তা ধরেননি।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসের সবুজ বলেন, ‘যদি ওই শিক্ষার্থী শিবির করে থাকে, তাহলে মারধর করা ঠিক আছে। আর যদি শিবির না করে, তবে কেন মারধর করা হয়েছে, এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’ শিবির হলেই ছাত্রলীগ কাউকে মারধর করার অনুমোদন পেয়ে যায় কি না, এ প্রশ্ন করা হলে তা এড়িয়ে যান ইলিয়াস হোসেন।

এ বিষয়ে প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, ‘মারধরের বিষয়ে কোনও অভিযোগ এখনও আমি পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এর আগে শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল হাসান সাদীর বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের হুমকি দেওয়াসহ সাধারণ শিক্ষার্থীদের মারধরের অভিযোগ উঠে। গত ৯ আগস্ট সাইফুল হাসান সাদীর নেতৃত্বে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করেন। এছাড়া দলীয় কোন্দলের কারণে শাখা ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীকেও সাইফুল হাসান সাদী ও তার অনুসারীরা মারধর করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

Comments

comments