ইসরায়েলি চৌকিতে স্কুলপড়ুয়া ফিলিস্তিন কিশোরীকে গুলি করে হত্যা

মেয়েটির ব্যাগে কিছু পাওয়া যায়নি, দুহাত উঁচু করে 'আমার কাছে কোনো ছুরি নেই' বলামাত্র একের পর এক গুলি করে ইসরায়েলি পুলিশ

ইসরায়েলের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ১৭ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনকে গুলি করে হত্যা করেছে। গত শনিবার হেবরনের এক নিরাপত্তা চৌকিতে দানিয়া এরশেইদ নামের ওই কিশোরীকে একের পর এক গুলি করা হয়। নিহত দানিয়া আল-রাইয়ান হাই স্কুলের শিক্ষার্থী ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনার সময় ইব্রাহিমি মসজিদের কাছেই দাঁড়ানো ছিলেন তিনি। নিরাপত্তা চৌকির কাছে আসলে তার দিকে অস্ত্র তাক করা হয়। মেয়েটি দুই হাত তুলে ‘আমার কাছে কোনো ছুরি নেই’ বলতে বলতেই গুলিবর্ষণ শুরু হয়। মাটিতে পড়ার আগেই তার দেহে ৮-১০টি গুলি প্রবেশ করেছে।

আইয়াদ আবু হালেহ নামের একজন টুইট করেছেন, ফিলিস্তিন মেয়ে, দানিয়া এরশেইদ, বয়স ১৭, হেবরোনে ইসরায়েলি ফোর্সের হাতে নিহত হয়েছেন। এ হত্যার ঘটনা সিসিটিভি-তে ধারণ হয়েছে। এটা প্রকাশ করতে অনুরোধ করে ইয়ুথ অ্যাগেইস্ট সেটলমেন্টস। ওই এলাকা সব সময় সিসি ক্যামেরায় নরজদারিতে থাকে।

সিএনএন এর প্রতিবেদনে বলা হয়, এক ফিলিস্তিন নারীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে ইসরায়েল বলছে তার কাছে অস্ত্র ছিল। কিন্তু প্রত্যক্ষদর্শী একে মিথ্যা অভিযোগ বলছেন। হেবরোনের বসবাসরত একজন সিএনএন-কে বলেন, ওই চৌকি থেকে ৪ মিটার দূরেই তিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন। তখনই হঠাৎ ঘটনা ঘটে। মেয়েটির চারপাশে ৭-৮ জন নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্য ছিলেন। মেয়েটির কাছে থাকা স্কুল ব্যাগটি পরীক্ষা করছিলেন তারা। মেয়েটিকে দেখে মনে হয়েছে তার বয়স হবে ১৪ বছর। একটা মেটাল ডিটেক্টরের মধ্য দিয়ে মেয়েটি যায়। স্কুল ব্যাগে কিছুই পাননি তারা। কিন্তু ‘ছুরিটা কোথায়’ প্রশ্ন করে মেয়েটির দুই পায়ের মাঝে মাটিতে গুলি করেন। ভয়ে মেয়েটি কয়েক কদম পেছনে যায়।

এই অবস্থায় মেয়েটি তার দুই হাত ওপরের দিকে তুলে বলে যে ‘আমার কাছে কোনো ছুরি নেই’। তখনই তাকে ৮-১০টি গুলি করা হয়।

সূত্র : মন্ডো ওয়েস

Comments

comments