চুরির অপবাদে শিশু নির্যাতন; গুমের অভিযোগ

বরিশালের মুলাদী উপজেলায় মোবাইল চুরির অপবাদ দিয়ে শাওন নামের এক শিশুকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে। নির্যাতনের পর শিশুটির কোন সন্ধান না মেলায় গুমের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে।

এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার একটি মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ ২ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো- সবুজ ও মহসিন। স্থানীয়রা জানান, গত ২১শে অক্টোবর চর শফিপুর গ্রামের সমিতির হাট এলাকায় শিশুটির হাত বেধে নির্যাতনের সময় দৃশ্যটি সেখানে উপস্থিত কেউ একজন মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় ধারন করেন। ওই ভিডিওতে দেখা যায় দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সের ২৫/৩০ জন মানুষের উপস্থিতিতে এক ব্যক্তি তাকে কাঠ দিয়ে পিটাচ্ছে এবং শিশুটি চিৎকার করছে।

ভিডিওটি বাংলাদেশ আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশন বরিশালের উপ-পরিচালকের (বাসক) হাতে পৌছালে তিনি বরিশালের পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলামের কাছে এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে বলা হয়, শাওন চর শফিপুরের নানাবাড়ীতে এসেছিল। মোবাইল চুরির অভিযোগে তাকে স্থানীয় কিছু লোক নির্মম নির্যাতন করে। তার বাবা নেই। মা ঢাকায় গৃহপরিচারিকার কাজ করেন। নির্যাতনের পর শিশুটির কোন সন্ধান মিলছে না। এই অবস্থায় বিষয়টি আমলে নিয়ে শাওনকে খুজে বের করা এবং নির্যাতনকারীদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানাচ্ছি।

পুলিশ সুপার অভিযোগ পেয়ে মুলাদী থানার ওসিকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিলে পুলিশ সবুজ ও মহসিন নামের দুই জনকে আটক করে। এদিকে বৃহস্পতিবার মুলাদী থানায় এ ব্যাপারে বাংলাদেশ আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশন বরিশালের উপ-পরিচালক সোহেল সরদার বাদী হয়ে ১টি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ওই দুই জনসহ ৬ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। মুলাদী থানার অফিসার্স ইনচার্য মো. মতিউর রহমান বলেন, থানা পুলিশ ইতিমধ্যে দুই জনকে আটক করেছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।

Comments

comments