চুরি হওয়া পুরো অর্থ উদ্ধার করা সম্ভব : গভর্নর

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি হওয়া ১০ কোটি ১০ লাখ ডলারের যে অংশ এখনো উদ্ধার হয়নি তার পুরোটাই উদ্ধার করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে জুডিশিয়ারি মামলা শেষ হলেই এই টাকা সব ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।’

বুধবার সন্ধ্যায় বরিশালে ব্যাংকার-এসএমই উদ্যোক্তার সঙ্গে মতবিনিময় ও প্রকাশ্যে ঋণ বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর এসব কথা বলেন।

এর আগে গভর্নর ফজলে কবির প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বরিশাল নগরের ক্লাব রোডের বরিশাল ক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ৪৪ জন এসএমই উদ্যোক্তার মধ্যে ৩৮ কোটি এক লাখ টাকার ঋণ বিতরণ করেন।

বাংলাদেশ ব্যাংক বরিশালের মহাব্যবস্থাপক মো. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময়র সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির আরো বলেন, ‘উদ্যোক্তা সৃষ্টি করাই হলো আমাদের মূল লক্ষ্য। এর মাধ্যমেই আমরা প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে একটি উন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে পারব।’ তিনি বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে হলে জিডিপির ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি দরকার। সে জন্য নতুন নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে হবে। তাই চাকরির পেছনে না ঘুরে পরবর্তী প্রজন্মকে উদ্যোক্তা হয়ে শিল্প কল-কারখানা তৈরি করে দেশকে আর্থিকভাবে এগিয়ে নিতে হবে। পাশাপাশি নারী উদ্যোক্তা সৃষ্টি করতে হবে। এতে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন হবে, নতুন নতুন কর্মসংস্থানেরও সৃষ্টি হবে।

গভর্নর আরো বলেন, আগামীতে এসএমই খাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। এই খাতের বিকাশে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। নারী উদ্যোক্তা বৃদ্ধিতে জামানতবিহীন ৪০ লাখ টাকা এসএমই লোন দেওয়া হচ্ছে। নারী উদ্যোক্তাদের ঋণ পাওয়া সহজ করতে ব্যাংকগুলোর প্রতি নির্দেশনা দেওয়া আছে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশাপাশি আরো উপস্থিত ছিলেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান, অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহম্মদ শামস্-উল ইসলাম, এবি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মসিউর রহমান চৌধুরী, প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. কামাল খান চৌধুরী প্রমুখ।

Comments

comments